শ্রীলঙ্কায় প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ চেয়ে বিক্ষোভ এবং বর্তমানে চলমান পরিস্থিতি।

Share this page

 

শ্রীলঙ্কায় সরকার সমর্থকদের সাথে সংঘর্ষের জের ধরে ক্ষুব্দ আমজনতা পদত্যাগ করা প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসে এবং সরকারদলীয় কিছু সংসদ সদস্যের বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে। মঙ্গলবার হাজার হাজার বিক্ষোভকারী মাহিন্দা রাজাপাকসে সরকারি বাসভবন ঈদের প্রধান কে চেষ্টা চালায় এবং পরবর্তীতে ভারী অস্ত্র সজ্জিত সৈন্যরা প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপকশাকে সেখান থেকে সরিয়ে নিয়ে যায়।

শ্রীলংকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা মে মাসের 6 তারিখে কলম্বোর সংসদ ভবনের কাছে প্রেসিডেন্ট গোটাবায়া রাজাপক্সা এবং সরকারের পদত্যাগের দাবি চেয়ে বিক্ষোভও করে। আর এই বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে কাঁদানে গ্যাস এবং জল কামান ব্যবহার করা হচ্ছে। সারা দেশজুড়ে বিক্ষোভ শুরু হওয়ায় প্রেসিডেন্ট নিরাপত্তা বাহিনী আরও ক্ষমতা দিয়ে পাঁচ সপ্তাহের দ্বিতীয় বারের মতো জরুরি অবস্থা ঘোষণা করে।

 

বিক্ষোভকারীরা মে মাসের 7 তারিখে বিক্ষোভের প্রতীক হিসেবে মেয়েদের অন্তর্বাস ঝুলিয়ে রাখে প্রেসিডেন্টের অফিসের সামনে লোহার বেড়ায়। প্রেসিডেন্ট এবং প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবিতে বিক্ষোভ চলছে দেশটিতে, জানা যায় যে শ্রীলংকার সবচেয়ে ভয়াবহ অর্থনৈতিক মন্দা।

 

শ্রীলংকার কলম্বোতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আছে সেনাবাহিনীরা পাহারা দিচ্ছে। মে মাসের 6 তারিখে দেশজুড়ে হরতালের মধ্যে বিক্ষোভ হওয়ায় সেনাবাহিনীরা কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কাছে অবস্থান গ্রহণ করে।

পুলিশ বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে মে মাসের 9 তারিখে কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ করে। শ্রীলঙ্কায় সরকার বিরোধী বিক্ষোভের জেরে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়। বিক্ষোভকারীরা পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ করে চলেছে এতে অনেক মানুষ আহত হচ্ছে বলে জানা যায়।

রান্না করা গ্যাসের সিলিন্ডার ভর্তি একটা ট্রাক লুট করেছে বিক্ষুব্ধ আন্দোলনকারীরা। জানা যায় বিক্ষোভকারীরা ট্রাকে উঠে 84টা গ্যাস সিলিন্ডার নিয়ে যায়।

 

বুদ্ধ ভিক্ষুকরা ও প্রেসিডেন্ট গোটা রাজাপাকসের পদত্যাগের দাবি জানিয়ে বিক্ষোভ করে প্রেসিডেন্ট ভবনের সামনে। তবে প্রেসিডেন্ট গোটাবায়া রাজাপক্সা পদত্যাগ না করার সিদ্ধান্তে অটল রয়েছেন বলে জানা যায়। আন্দোলনের পরিস্থিতি সামাল দিতে দেশজুড়ে কারফিউ বুধবার পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়েছে বলে খবর।

মে মাসের 9 তারিখে সারাদিন ধরে সংঘর্ষ হয় আর তারপর প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসা পদত্যাগ করে। শ্রীলংকার পুলিশ জানিয়েছে বিক্ষোভকারীরা কলম্বোর উপকণ্ঠে একজন সরকারদলীয় এমপি অমরাকীর্তি অ্যাথুকলারার গাড়ীতে হামলা চালানোর কারণে দুইজনকে গুলি করা হয়। আর এতে একজনের মৃত্যু হয়। এরপর বিক্ষোভকারীরা সংসদ সদস্য কে ঘিরে ধরে। পরবর্তীতে নিজের পিস্তল দিয়ে আত্মহত্যা করে ওই সংসদ সদস্য।

 

প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসে পদত্যাগ করার পরও শান্ত হয়নি বিক্ষোভকারীরা। তারা এখন দেশটির প্রেসিডেন্টের পদত্যাগ দাবি করে বিক্ষোভ করছে বলে জানা যায়। জীবনযাত্রার ব্যয় বেড়ে যাওয়ায় সাধারণ মানুষ ক্ষুব্ধ। অর্থনৈতিক দুরবস্থার জন্য কোভিদ কে দায়ী করছে সরকার দেশটির প্রধান বাণিজ্য শিলং কোন উপযুক্ত বৈদেশিক আয়ের উৎস ধসিয়ে দিয়েছে। কিন্তু বিশ্লেষকেরা মনে করেন অর্থনৈতিক ব্যবস্থাপনায় এর অন্যতম কারণ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

bn Bengali
X